পুষ্টি প্রচারণায় তরুণদের উদ্ভাবনী ভাবনা কাজে লাগাতে হবে

খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেছেন, পুষ্টি খাতের লক্ষ্য অর্জনে আন্তর্জাতিক নিউট্রিশন অলিম্পিয়াড গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। দেশের তরুণ জনগোষ্ঠীকে পুষ্টি কার্যক্রমের প্রচারণায় যুক্ত করে তাদের উদ্ভাধনী ভাবনা কাজে লাগাতে হবে।

সোমবার (২২ নভেম্বর) খাদ্য অধিদপ্তরের ফুড প্ল্যানিং অ্যান্ড মনিটরিং (এফপিএমইউ) ইউনিটের কনফারেন্স রুমে ‘আন্তর্জাতিক নিউট্রিশন অলিম্পিয়াড’র লোগো উন্মোচন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

খাদ্যমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুযোগ্য নেতৃত্বে খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জনের মাধ্যমে বাংলাদেশে খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত হয়েছে। পুষ্টি নিরাপত্তা অর্জনের মাধ্যমে সবার জন্য নিরাপদ ও পুষ্টিকর খাদ্য প্রাপ্তি নিশ্চিত হবে অচিরেই। এখানে তরুণদের ভূমিকা হবে গুরুত্ববহ।

তিনি বলেন, স্কুল-কলেজ ও মসজিদ-মাদরাসার শিক্ষক-ইমামদের মাধ্যমে জনসাধারণের মাঝে পুষ্টি সচেতনতা বৃদ্ধি ও নিরাপদ খাদ্য সম্পর্কে সচেতনতা বাড়াতে হবে।

তিনি আরও বলেন, অপুষ্টি রোধে নিউট্রিশন ক্লাবের সদস্যরা বিশেষ করে তরুণরা কার্যকর ভূমিকা পালন করতে পারে। তাদের সৃজনশীলতা ও নেতৃত্বদানের সক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য খাদ্য মন্ত্রণালয় সবধরনের সহায়তা করবে।

খাদ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. মোছাম্মাৎ নাজমানারা খানুমের সভাপতিত্বে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পুষ্টি ও খাদ্যবিজ্ঞান ইনস্টিটিউটের প্রফেসর ড. নাজমা শাহীন, গ্লোবাল অ্যালায়েন্স ফর ইম্প্রুভড নিউট্রেশনের (গেইন) কান্ট্রি ডিরেক্টর ডা. রুদাবা খন্দকার, সান ফোকাল পয়েন্টের টেকনিক্যাল সাপোর্ট ডা. মো. এম ইসলাম বুলবুল, এফপিএমইউয়ের মহাপরিচালক মো. শহীদুজ্জামান ফারুকী, নিউট্রিশন অলিম্পিয়াডের উদ্যোক্তা বিবিআইডি ফাউন্ডেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মহীদ উদ্দিন আকবর বক্তৃতা করেন।

তথ্য সুত্রঃ জাগো নিউজ।

;