লকডাউনে শ্রমজীবী মানুষের মধ্যে খাদ্য, চিকিৎসার নিশ্চয়তা দাবি ক্ষেতমজুর সমিতির

করোনা মহামারি নিয়ন্ত্রণে লকডাউন চলাকালে দিন এনে দিন খাওয়া শ্রমজীবী মানুষের জন্য সরকারের পক্ষ থেকে পর্যাপ্ত খাদ্য সহায়তা, করোনা টেস্ট ও চিকিৎসার দাবি করেছে বাংলাদেশ ক্ষেতমজুর সমিতির।
আজ ১০ এপ্রিল এক বিবৃতিতে বাংলাদেশ ক্ষেতমজুর সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ডা. ফজলুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. আনোয়ার হোসেন রেজা বলেন, করোনা মহামারি থেকে জনগণকে রক্ষায় লকডাউন কার্যকরী করতে শ্রমজীবী মানুষকে পর্যাপ্ত খাদ্য ও অর্থ সহায়তা না করতে পারলে লকডাউন সফল হবে না, অতীত অভিজ্ঞতা তাই বলে।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ সকল জনগণের জন্য সরকারি উদ্যোগে পর্যাপ্ত করোনা টেস্ট ও চিকিৎসা নিশ্চয়তার দাবি করে নেতৃবৃন্দ বলেন, জাতীয় পরামর্শক কমিটির ‘বিদেশগামী শ্রমজীবী মানুষের বাইরে অন্যদের বেসরকারিভাবে টেস্ট করা’র পরামর্শ গ্রহণযোগ্য নয়। সাধারণ শ্রমজীবী গরিব মানুষের করোনাকালে এমনিতেই খাদ্য, অর্থ সংকটে দিন পার করছে। করোনা টেস্টের দায়িত্ব সরকারকেই নিতে হবে। করোনা ভ্যাকসিন সরকারি পর্যায়ে আমদানি করে সকল নাগরিকদের মধ্যে দেওয়ার ব্যবস্থা অব্যাহত রাখতে হবে। বেসরকারি আমদানির অনুমোদন পেলে ব্যবসায়ীরা জনগণের পকেট কেটে টাকা নিবে অন্যদিকে নিম্নমানের বা ভেজাল ভ্যাকসিনে বাজার সয়লাব হতে পারে। তাই ‘জাতীয় পরামর্শ কমিটি‘র বেসরকারিভাবে ভ্যাকসিন আমদানির সুপারিশও গ্রহণযোগ্য হতে পারে না।
বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, করোনার প্রথম ধাপেও দেখা গেছে হাজার হাজার মানুষ লকডাউনের কারণে না খেয়ে দিন কাটিয়েছে। তাদের ঘরে খাদ্য সহায়তা পৌঁছে নাই। এবার অতীত থেকে শিক্ষা নিয়ে ঘরে ঘরে খাদ্য সহায়তা পৌঁছে দেওয়ার জোর দাবি জানানো হয়।
 

;