চাঁদাবাজির মামলায় গ্রেপ্তার নেতাকে বহিষ্কার ছাত্রলীগের


চাঁদা না পেয়ে ঢাকার শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের ওয়ার্ড বয়কে পিটিয়ে জখম করার মামলায় গ্রেপ্তার আকতারুল করিমকে সংগঠন থেকে বহিষ্কার করেছে ছাত্রলীগ।

আকতারুল করিম ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জিয়াউর রহমান হল শাখা ছাত্রলীগের উপদপ্তর সম্পাদক ছিলেন। তিনি ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগে ভর্তি হলেও এখনো স্নাতক শেষ করতে পারেননি।

আজ বুধবার বিকেলে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি আল নাহিয়ান খান ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে তাঁকে বহিষ্কারের কথা জানানো হয়। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সংগঠনের নীতি-আদর্শ ও শৃঙ্খলাপরিপন্থী কার্যকলাপে জড়িত থাকায় করিমকে ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কার করা হলো।

আকতারুল করিমের বিরুদ্ধে অভিযোগ, গত সোমবার সকালে রাজধানীর চানখাঁরপুলে অবস্থিত শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের ওয়ার্ড বয় মনির হোসেনের কাছে পাঁচ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করেন। চাঁদা দিতে রাজি না হওয়ায় ওই ইনস্টিটিউটের সামনেই অনুসারীদের নিয়ে মনির ও তাঁর সহকর্মীদের পেটান এ ছাত্রলীগ নেতা। ওই দিনই মনিরের করা মামলায় করিমকে গ্রেপ্তার করে শাহবাগ থানার পুলিশ।

গতকাল মঙ্গলবার মামলার তদন্ত কর্মকর্তা শাহবাগ থানার উপপরিদর্শক মোহাম্মদ রইচ হোসেন আকতারুল করিমকে আদালতে হাজির করে পাঁচ দিনের রিমান্ডের আবেদন করেন। আদালত তাঁর এক দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। শাহবাগ থানার নিবন্ধন শাখার কর্মকর্তা মো. বাবুল হোসেন প্রথম আলোকে এ তথ্য জানিয়েছেন।

আকতারুল করিম ও তাঁর কয়েকজন অনুসারী বেশ কিছুদিন ধরে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান এলাকায় নিয়মিত ছিনতাই ও মাদক বিক্রি করে আসছিলেন বলে অভিযোগ রয়েছে। এ ছাড়া তিনি উদ্যান এলাকার মাদক ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে নিয়মিত চাঁদা নিতেন বলে অভিযোগ রয়েছে। করোনার কারণে বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকায় ফাঁকা ক্যাম্পাসে রাতে সহযোগীদের নিয়ে ছিনতাইসহ নানা অপকর্মের অভিযোগও রয়েছে তাঁর বিরুদ্ধে। এসব ঘটনায় শাহবাগ থানায় তাঁর বিরুদ্ধে একাধিক ছিনতাইয়ের মামলা রয়েছে।

তথ্য সুত্রঃ প্রথম আলো।
 

;